শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪
জান্নাত আরা ঝর্না ও মুনিয়াদের চরিত্র হননকারী মামুনুল হক এবং সায়েম সোবহান আনভীরদের গোত্রকে আলাদা করে ভাববার কিছু নেই। উভয় ক্ষেত্রেই মুক্তিযোদ্ধা নামক শব্দটিকে কলঙ্কিত করার প্রচেষ্টা করা হয়েছে। (ঝর্না,মুনিয়া উভয়ের পিতা আসল নাকি নকল মুক্তিযোদ্ধা সেটিও বিবেচ্য বিষয় নয়)। ধরে নিলাম মেয়ে দুটি নষ্টা চরিত্রের। কিন্তু আপনারা পাক পবিত্র মানুষ হয়ে নষ্টাদের সাথে জড়ালেন কি ভাবে? আপনারই তাদের প্ররোচিত করেছিলেন নাকি তারাই আপনাদের প্ররোচিত করেছিল সেটি জানবার অবকাশ কি সাধারন মানুষের নেই? ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে খান সেনারা মুক্তিযোদ্ধা পরিবারগুলোর নারীদের গণিমতের মাল হিসেবে ব্যবহার করতো বিনা অর্থে জোর পূর্বক রাজাকার আলবদরদের সহায়তায়। এখন স্বাধীন দেশে আইন কাঠামোর মাঝে প্রলোভন দেখিয়ে তাঁদের মধ্যস্ততাকারী কিম্বা স্বয়ং নিজেরাই কেউ চুক্তিভিত্তিক,কেউ কাবিন ছারা বিবাহ, কেউ মুতা বিবাহ দেখিয়ে লুকিয়ে পর্দার অন্তরালে নারী ভোগ করছে অর্থের বিনিময়ে। এর দু'একটি ফাঁস হচ্ছে। বেশীরভাগ রয়েছে অন্ধকারে আঁড়ালে। এর জন্য নারীকে নারী সমাজকে আমরা দায়ী করছি পুরুষতান্ত্রিক চিন্তা চরিত্রের কারনে, পাশাপাশি তাদের হিজাব এ বোরকার আড়েলে রাখার চেষ্টা করছি । অনেক নারীও ভিকটম নারীর দোষগুন খুঁজতেই ব্যস্ত রয়েছেন। প্রকৃত দায় দািয়িত্ব নির্ধারন ও দোষীকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন না। কিম্বা নূন্যতম প্রতিবাদ জানাতেও সাহস পাচ্ছেন না। তাহলে কি ধরে নিতে পারি আমরা সেই একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের পর্বেই আমরা রয়ে গেছি। মাঝখানে আর্শীবাদ হিসেবে আমাদের ভাগ্যে জুটেছে স্বাধীনতা নামক শব্দ ও স্বতন্ত্র পতাকা। আমাদের চিন্তার জগত রাষ্ট্রের আইন কাঠামোর মাঝে কোন পরিবর্তন আসেনি। মুক্তিযুদ্ধের পর্বেও পাকিস্তানের আইন আদালত ছিল লুটেরা গণহত্যা, গণধর্ষণকারীদের পক্ষে। স্বাধীন দেশটাতেও অনুরুপ ও বদ অসামাজি কর্মকে আলাদা করে নির্ধারন করতে পারেনি রাষ্ট্র। বাস্তবতাই সেটি প্রমান করছে। তবে গুনগত পরিবর্তন হলো এই যে, তখন ছিল ভিনদেশী ভিন্ন ভাষার লুটেরা ধর্ষক। এখন স্বগোত্রীয় একই ভাষার মানুষ। রাষ্ট্র, আইন, মিডিয়া তাদেরই পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে। এ লজ্জা রাখি কোথায়?

সম্পর্কিত সংবাদ

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

জাতীয়

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

♦♦ জঙ্গী দমন কোন যুদ্ধ নয় ♦♦ মুক্তিযুদ্ধতো নয়'ই ♦♦

ফটোগ্যালারী

♦♦ জঙ্গী দমন কোন যুদ্ধ নয় ♦♦ মুক্তিযুদ্ধতো নয়'ই ♦♦

এক ফেসবুক বন্ধু আবেগপ্লুত হয়ে সিলেটের শিববাড়ীর আতিয়া মহলে জঙ্গী দমনে আইন শৃংখলা বাহিনী সহ সেনাবাহিনীর কমান্ডো অভিযানের ক...

পিতৃত্বকালীন ছুটি চালু করল রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়

শাহজাদপুর

পিতৃত্বকালীন ছুটি চালু করল রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়

দেশে প্রথমবারের মতো মাতৃত্বকালীন ছুটির পাশাপাশি পিতৃত্বকালীন ছুটির বিধান চালু করেছে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্বকবি রব...

বাঘাবাড়ী মিল্কভিটা কারখানায় সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত

ফটোগ্যালারী

বাঘাবাড়ী মিল্কভিটা কারখানায় সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : গতকাল (সোমবার) রাতে বাংলাদেশ দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় সমিতি লিমিটেড (মিল্কভিটা) এর বাঘাবাড়ী কারখানার...

শাওয়ালের ছয়টি রোযা পালন করার ক্ষেত্রে উত্তম পদ্ধতি কি?

জীবনজাপন

শাওয়ালের ছয়টি রোযা পালন করার ক্ষেত্রে উত্তম পদ্ধতি কি?

শাওয়ালের ছয়টি রোযা পালন করার ক্ষেত্রে উত্তম পদ্ধতি হচ্ছে, ঈদের পর পরই উহা আদায় করা এবং পরস্পর আদায় করা। বিদ্বানগণ এভাবেই...

আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে মখদুম শাহদৌলা (রঃ) এর বাৎসরিক ওরশ শেষ হচ্ছে

ধর্ম

আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে মখদুম শাহদৌলা (রঃ) এর বাৎসরিক ওরশ শেষ হচ্ছে

শামছুর রহমান শিশির ও রাজীব রাসেল : আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ইয়ামেন শাহাজাদা হযরত মখদুম শাহদৌলা শহিদ ইয়ামেনি (রহ.) এর...