শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

১৯৭১ সালে শুরু হয় মহান মুক্তিযুদ্ধ। ১৯৭০ সালে পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে বিজয়ী দল আওয়ামীলীগের অনুপিস্থিতিতে সে সময় কালেও ভুট্টোসহ অন্যান্য দলের নেতৃবৃন্দ পাকিস্তানের রাষ্ট্র ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য কুত্তা কামড়া কামড়ি শুরু করেছিল। 

অপরদিকে বাঙালি জাতির মুক্তির লক্ষ্যে স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য তাজউদ্দিন আহমেদ কে প্রধানমন্ত্রী করে বাংলাদেশ সরকার গঠিত হয়। সেখানেও অনুরূপ দৃশ্য পরিলক্ষিত হয়েছিল। শুরু হয় আওয়ামীলীগ নেতৃত্বের মধ্যে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব। 

তখন আয়ামীলীগ ও যুব নেতৃত্বের ক্ষুদ্র একটি অংশ দাবী তোলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনুপুস্থিতিতে তারাই একমাত্র স্বাধীন বাংলাদেশ সরকার গঠনের উত্তরাধিকারী। শুরু হয় তাজউদ্দিন বিরোধী প্রচারণা। 

এক পর্যায়ে তাঁকে হত্যা করার জন্য এক সশস্ত্র যুবককে পাঠানো হয়। সে আত্মসমর্পণ করে। তাজউদ্দিন আহমেদ সরকারের সাহসী ও বলিষ্ট নেতৃত্ব মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মত্যাগে, ভারত সরকারের আন্তরিক সহযোগিতায়, ভারত সেনাবাহিনীর সাথে মুক্তিবাহিনীর যৌথ বাহনী গঠন করার মাঝ দিয়ে মিত্রবাহিনীর সাথে সম্মিলিত ভাবে পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর ওপর স্থল পথে আকাশ পথে উপর্যুপরি আক্রমণের ফলে বিশ্বশক্তিগুলোর পদক্ষেপের সুযোগ নেয়ার আগেই ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করে। বাংলাদেশ স্বাধীন হয়। স্বাধীন দেশে আওয়ামীলের সেই অভ্যন্তরীণ কলহগুলো দানা বাঁধতে থাকে। 

বঙ্গবন্ধু স্বদেশ প্রত্যাবর্তণ পর তাজউদ্দিন বিরোধী গ্রুপটির তৎপরতা বৃদ্ধি পায়। বঙ্গবন্ধু নিজেও একপেশে হয়ে যান। এই দ্বন্দ্ব ও রাজনীতিতে নানা অন্ত বিরোধের সুযোগে রও এবং সিআইএ (RAW-CIA) এর অন্ধকারে তাদের গুটি চালবার সুযোগ সৃষ্টি হয়। ঘটে যায় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্টের ভয়াবহ নির্মম নৃশংস হত্যাকান্ড। 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করা হয়। হত্যাকরা হয় জাতীয় ৪ নেতাকে।  আওয়ামীলীগ রাজনীতির মূল মেরুদন্ড ভেঙ্গে দেয়া হয়। রাখা হয় ছায়া আর কায়া। 

এখন চলছে ছায়া আর কায়ার রাজনীতি। স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসে মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হারিয়ে গেছে। কিন্তু থেমে নেই লুটের মালের ভাগের হিস্যা পেতে ক্ষমতার কামড়া কামড়ি। মুক্তিযোদ্ধারা ফাঁটা বাঁশের চিপায়। 

আমরা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেইনা। প্রয়োজনও মনে করিনা। তাহলে মুক্তিযুদ্ধ মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মের ভবিষ্যৎ কি? আমরা মুক্তিযোদ্ধারা ফাঁটা বাঁশের চিপায়। প্রজন্মও অন্ধ চোরাগলিতে পথ হাটছে। এসো শোকের মাসে পেছনের ইতিহাসকে স্মরণ করি। শতর্ক হই। শত্রু কিন্তু আমাদের মাঝেই অবস্থান করছে। জয়বাংলা।


বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার

সাংবাদিক, কলামিস্ট ও গবেষক প্রধান সম্পাদক

শাহজাদপুর সংবাদ ডটকম

সম্পর্কিত সংবাদ

কবিগুরুর ছোটনদীতে ভাসবে কী আর ‘সোনার তরী’ - স্থানীয় এমপি’র হস্তক্ষেপ কামনা

সম্পাদকীয়

কবিগুরুর ছোটনদীতে ভাসবে কী আর ‘সোনার তরী’ - স্থানীয় এমপি’র হস্তক্ষেপ কামনা

সিরাজগঞ্জ-৬ (শাহজাদপুর) থেকে নির্বাচিত মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক মেরিনা জাহানের কাছে একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আমার...

বিগ ডাটা কি এবং কেন! ( What is Big Data and Why? )

ফটোগ্যালারী

বিগ ডাটা কি এবং কেন! ( What is Big Data and Why? )

একটা সময় ছিলো যখন আমরা আমাদের সবকিছুই কাগজে লিখে রাখতাম। কখন খেতে যাবো, কবে মিটিং, কখন শপিং এ যাবো এসব টু ডু লিস্টগ...

শাহজাদপুরে ইউনিয়ন আ’লীগকে শক্তিশালী ও সুসংগঠিত করতে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

রাজনীতি

শাহজাদপুরে ইউনিয়ন আ’লীগকে শক্তিশালী ও সুসংগঠিত করতে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

শাহজাদপুরের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী ও সুসংগঠিত করার লক্ষে জালালপুর ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ডের নেতৃবৃন্দ ও ইউনিয়ন বাসীর...

বগুড়ায় ৬ টাকায় এক কেজি কাঁচা মরিচ

বাংলাদেশ

বগুড়ায় ৬ টাকায় এক কেজি কাঁচা মরিচ

চাষিরা বলছেন, খেত থেকে হাটে নেওয়া পর্যন্ত প্রতি কেজি কাঁচামরিচে গড়ে তিন টাকা খরচ হয়। এ ছাড়া রয়েছে খাজনা ও অন্যান্য খরচ,...

শাওয়াল মাসে বিয়ের কোনো ফজিলত আছে কি?

ধর্ম

শাওয়াল মাসে বিয়ের কোনো ফজিলত আছে কি?

সুতরাং শাওয়াল মাসে বিয়ে করাকে যেমন অশুভ মনে করা যাবে না, এ মাসে বিয়ে করাকে বিশেষ ফজিলতপূর্ণ মনে করারও কোনো ভিত্তি নেই। ত...

আপাতত গরম কমছে না

জাতীয়

আপাতত গরম কমছে না

বুধবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪১ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল মোংলায়। দেশের মোট ১৬ জেলার ওপর দিয়ে তীব্র তা প্রবাহ বয...